মঙ্গলবার ১৮ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পাঁচ বছর পর ইউরোপ সফরে শি জিনপিং

অনলাইন ডেস্ক   |   সোমবার, ০৬ মে ২০২৪   |   প্রিন্ট   |   3 বার পঠিত

পাঁচ বছর পর ইউরোপ সফরে শি জিনপিং

পাঁচ বছরের মধ্যে প্রথম ইউরোপ সফর শুরু করেছেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। তার এই সফরের প্রধান এজেন্ডা থাকবে ইউক্রেনে রাশিয়ার যুদ্ধের পাশাপাশি বেইজিং ও ব্রাসেলসের মধ্যে অর্থনৈতিক টানাপোড়েন রোধ করা।

আল জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের প্রথম যাত্রাবিরতি হবে ফ্রান্সে । ৬ মে প্যারিসে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁন এবং ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন ডার লিয়েনের সঙ্গে বৈঠক করবেন। এরপর তিনি সার্বিয়া এবং হাঙ্গেরি সফর করবেন। দুটি দেশ ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে পূর্ণ মাত্রায় আক্রমণ সত্ত্বেও রাশিয়ার সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক বজায় রেখেছে।

আটলান্টিক কাউন্সিলের গ্লোবাল চায়না হাবের সহকারী পরিচালক ম্যাট গেরাসিম বলেছেন, তিনটি লক্ষ্য নিয়ে শি জিনপিং ইউরোপ সফর করছেন। সেগুলো হলো- ইউক্রেনের বিরুদ্ধে রাশিয়ার যুদ্ধে চীনের সমর্থনের কারণে ক্ষতিগ্রস্থ ইউরোপের সঙ্গে সম্পর্ক মেরামত করা, চীনের বিরুদ্ধে ইইউর অর্থনৈতিক নিরাপত্তা এজেন্ডাকে ভোঁতা করে দেওয়া এবং তার শক্তিশালী অংশীদারদের সাথে বেইজিংয়ের দৃঢ় সম্পর্কের প্রদর্শন করা।

বার্লিন ভিত্তিক জার্মান মার্শাল ফান্ড অফ দ্য ইউনাইটেড স্টেইটসের সিনিয়র ফেলো নোয়াহ বারকিন বলেন, চীনকে অনেক ইউরোপিয়ান দেশে বহুমাত্রিক হুমকি হিসেবে দেখা হচ্ছে। তবে, অর্থনৈতিক ও নিরাপত্তাজনিত ক্ষেত্রে চীন সম্পর্কে উদ্বেগ মোকাবিলায় কতটা দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া উচিত, তা নিয়ে ইউরোপের দেশগুলোর মধ্যে বিভেদ রয়েছে।

এই প্রেক্ষাপটে ফ্রান্স, সার্বিয়া ও হাঙ্গেরিতে শি জিনপিংয়ের সফরকে তার সমালোচকদের প্রতি একটি জবাব হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে। ইউরোপের কিছু অংশে চায়নার প্রতি কঠোর দৃষ্টিভঙ্গি থাকা সত্ত্বেও যে বেশ কয়েকটি দেশ চীনের প্রতি উদারতার নীতি গ্রহণ করেছে, শি জিনপিংয়ের ইউরোপ সফর এটাই প্রমাণ করে।

বেইজিং কথিত বাণিজ্য যুদ্ধ মোকাবিলায় ইউরোপের প্রচেষ্টাকে বাধা দেওয়ার পথ বেছে নেবে। আসন্ন মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে অনিশ্চয়তার মধ্যে ইউরোপ যেন যুক্তরাষ্ট্রের আরও ঘনিষ্ঠ না হয়ে পড়ে, এই বিষয়টিও তারা নিশ্চিত করতে চায়।

Facebook Comments Box

Posted ১:৩১ অপরাহ্ণ | সোমবার, ০৬ মে ২০২৪

londonpratidin.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

Editor : Naem Nizam